পর্যটনমন্ত্রক

কেন্দ্রীয় পর্যটন মন্ত্রকের উদ্যোগে দেখো আপন দেশ ওয়েবিনার সিরিজের আওতায় 'বৈদিক খাদ্য ও ভারতের মশলা' শীর্ষক ৩৭ তম ওয়েবিনার

Posted On: 24 JUN 2020 2:36PM by PIB Kolkata

নতুন দিল্লি, ২৪ জুন, ২০২০

 



বিজ্ঞানের প্রাচীন জ্ঞান থেকে আমাদের দেশের মানুষের  স্বাস্থ্য বিষয়ক উপকারিতাকে তুলে ধরার জন্য, কেন্দ্রীয় পর্যটন  মন্ত্রক দেখো আপনা দেশ ওয়েবিনার সিরিজের আওতায় 'বৈদিক খাদ্য ও ভারতের মশলা’ শীর্ষক ৩৭ তম ওয়েবিনারের আয়োজন  করে। ওয়েবিনারে বৈদিক খাবার এবং ভারতের  মশলার গুরুত্বের কথা তুলে  ধরা হয়।এই মশলা  বিশ্বের কাছে অজানা রয়েছে  এবং এর সঙ্গে   আধুনিক বিশ্বের রান্নার  কখনও যোগসূত্র গড়ে ওঠে নি। যে খাবারের টানে  ভ্রমণ পিপাসুরা বার বার ছুটে আসেন এবং এই খাবার কি করে প্রস্তুত করা হয় তা অন্বেষণের প্রয়াস চালান, এই আলোচনায় সেই খাবারের সম্পর্কে ধারণাগুলি  তুলে ধরা হয় এবং এর মশালার গোপনীয়তা ও খাবার প্রস্তুতির কৌশলটি সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়।  'এক ভারত শ্রেষ্ঠ ভারত' এর অধীনে ভারতের সমৃদ্ধ বৈচিত্র্যকে তুলে ধরতে এই দেখো আপন দেশ ওয়েবিনার সিরিজ আয়োজন করা হয়েছে।

 দেখো আপন দেশ ওয়েবিনার সিরিজের ৩৭ তম আলোচনাসভাটি উপস্থাপন করেন ভারতের খাদ্য পর্যটন সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি তথা রন্ধনশিল্পী  রাজীব গয়াল, এবং ডেমিরজিক হসপিটালিটি প্রাইভেট লিমিটেডের  রন্ধনশিল্পী গৌতম চৌধুরী।

 আলোচনার শুরুতে শ্রী গয়াল বলেন ভারতীয় সংস্কৃতির অমূল্য সম্পদ হল বৈদিক খাবার ও মশলা।  তিনি বলেন বেদে  খাবার কিভাবে খাওয়া উচিৎ এবং শরীরকে কি ভাবে রক্ষণাবক্ষেণ করা দরকার সে সম্পর্কেও তুলে ধরা  হয়েছে। মানুষের খাদ্য ও পানীয় অভ্যাসের বিষয়ে আলোকপাত করেন তিনি। আলোচনায় শ্রী গয়াল রান্নার পাত্র সম্পর্কে বলতে গিয়ে জানান,  মাটির পাত্রে রান্না করা হলে তা খাবারের প্রকৃত গন্ধ ধরে রাখে এবং গরম থাকে।তামার পাত্রের খুব ভাল ঔষধি গুণ রয়েছে এবং এখানে রান্না করা হলে কোনও ব্যাকটেরিয়া বেঁচে থাকতে পারে না।  আয়রন প্যানে খনিজ সমৃদ্ধ এবং এখানে রান্না করা খাবার সুস্বাদুও হয় বলে তিনি জানান। রূপোর পাত্রে থাকা খাবার কিভাবে শরীরকে ঠান্ডা  করে ও সতেজ রাখতে সাহায্য করে সে বিষয়েও আলোচনায় তুলে ধরা হয়।   

এই ওয়েবিনারে বিভিন্ন খাবারের গুরুত্ব এবং এর স্বাস্থ্যগত সুবিধার বিষয়টিও ভাগ করে নেওয়া হয়। বৈদিক খাদ্য বিজ্ঞান অনুসারে, জলে সমৃদ্ধ শাকসব্জি এবং ফল যেমন তরমুজ,আঙুর, মূল ইত্যাদি খাওয়ার জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়।কারণ এটি শরীরের তাপমাত্রা সুষম রাখে, কম ঘন ঘন প্রস্রাব হয়।

 রন্ধনশিল্পী গৌতম চৌধুরী 'গ্রিন  গ্রাম খিচুড়ি' প্রস্তুত  প্রণালী তুলে ধরেন এবং এই খিচুড়ি সরাসরি রান্না করে দেখান। তিনি জিরে, হলুদ, গোলমরিচ ইত্যাদি মশলার গুরুত্বকেও সকলকে জানান। একইভাবে প্রতিদিনের রান্নায় হলুদ ব্যবহারের সুবিধাগুলি কথাও তুলে ধরেন।

আগামীকাল সকাল ১১টায় "ভারতে মোটরগাড়ির অভিযান" শীর্ষক ওয়েবিনারের আয়োজন করা হয়েছে।

 

 



CG/SS



(Release ID: 1634101) Visitor Counter : 10